সিঙ্গেল টপিক ও মাল্টি-টপিক কোনটি ব্লগিংয়ে ভালো।

অধিকাংশ নতুন ব্লগার একটা কমন কনফিউশনে থাকে। সিঙ্গেল টপিক নাকি মাল্টি-টপিক কোনটির উপর ব্লগিং করব। আমার গবেষনা বলে আপনার….

1060 VIEWS

সিঙ্গেল-টপিক-ও-মাল্টি-টপিক

আমি অনেক ফর্ম এবং সোসাল মিডিয়ায় ব্লগিং নিয়ে অনেক প্রশ্ন দেখি। তার মধ্যে কমন প্রশ্ন হচ্ছে, ’সিঙ্গেল টপিক নাকি মাল্টিটপিক কোনটির উপর ব্লগিং করব।’

অধিকাংশ নতুন ব্লগার একটা কমন কনফিউশনে থাকে। ব্লগিং তো শুরু করব কিন্তু অনেকগুলো টপিক নিয়ে শুরু করব নাকি একটিমাত্র টপিক নিয়ে শুরু করব। আমি এই বিষয়টা নিয়ে ডিপলি গবেষণা করে কিছু তথ্য শেয়ার করছি।

সিঙ্গেল টপিক ও মাল্টি-টপিক কোনটি ব্লগিংয়ে ভালো?

টপিক কি?

ব্লগে আপনি যে বিষটার উপর লেখালেখি করেন সেটা ব্লগের টপিক। অধিকাংশ নতুন ব্লগারকে তাদের ব্লগের টপিকের ব্যপারে জিজ্ঞেস করলে বলে:-

আমার ফটোগ্রাফি, ট্রাভেল, লাইফস্টাইল, টেক, ফ্যাশান সকল বিষয়ে আগ্রহী। আমি সকল বিষয়ে ব্লগে লিখতে চাই। তারা ভাবে সকল টপিক এক ব্লগে আলোচনা করলে বেশি পাঠককে আকর্ষন করে।

এটি সম্পূর্ণ একটা গাজাখুরে আইডিয়া। আমি একটু সহজ করে বলি।

আপনি ফটো তুলতে পছন্দ করেন। আপনার কাছে দুইটি ওয়েবসাইট আছে যার মধ্য হতে একটি কে সাবস্ক্রাইব করতে পারবেন।

  1. ব্লগটিতে শুধুমাত্র ফটোগ্রফি নিয়ে আলোচনা করা হয়।
  2. এটিতে ফটোগ্রাফির সাথে সাথে টেক, লাইফস্টাইল নিয়ে আলোচনা করা হয়।

আপনি কোনটিকে সাবস্ক্রাইব করবেন? আমি হলে অবশ্যই প্রথমটিকে বেছে নিতাম।

তাই আজই নিজেকে প্রশ্ন করুন।

  • আপনার ব্লগের টপিক কি?

আমি জানি ব্লগের টপিক নির্ধারন করা একজন ব্লগারের জন্য সবচেয়ে কষ্টকর বিষয়।

সিঙ্গেল টপিক কি?

একটি নির্দিষ্ট টপিক সিলক্ট করে সেটার উপর বিস্তার আলোচনা করা হলে সেই ব্লগকে সিঙ্গেল টপিক ব্লগ বলে। আমাদের সাইটে ব্লগিং বিষয়টা ফোকাস করে লেখা হয়। এজন্য এটি ব্লগিং নিসবেস ব্লগ।

এই সাইটের একটা মাত্র টপিক থাকাই এটি সিঙ্গেল টপিক ব্লগ।

  • problogger.com সাইট সিঙ্গেল টপিক ব্লগ -এখানকার বিষয় ব্লগিং
  • Neil Patel – এটিও শুধুমাত্র অনলাইন মার্কেটিং নিয়ে। যেটি সিঙ্গেল টপিক।
  • Android Authority: এন্ড্রয়েড নিয়ে তৈরি।

আমি শুধুমাত্র এমন কিছু ব্লগ দেখাতে চেয়েছি যেগুলি সিঙ্গেল টপিক ব্লগ। সিঙ্গেল টপিক ব্লগ অনেক দ্রুত সার্চ ইঞ্জিন র‌্যাংক করে মাল্টি টপিকের চেয়ে।

মাল্টি-টপিক কি?

মাল্টি-টপিক ব্লগ এমন একটি ব্লগ যেখানে অনেকগুলি টপিক নিয়ে আলোচনা করা হয়। এই ব্লগ থেকে টাকা ইনকাম অনেকটা কষ্টের কাজ।

যদি একজনে পোস্ট লিখে ব্লগটা চালায় তবে অনেক কষ্টকর হয়ে যায়। তাছাড় সাইটে সকল ধরনের পোস্টের জগাখিচুড়ি।

সকলের মন পেতে গিয়ে কারোর মন যুগিয়ে ওঠা সম্ভব হয় না। অর্থাৎ পাঠক ইন্টারেকশন কম। আপনার ব্লগে কম ট্রাফিক ড্রাইভ করে থাকে। সার্চ ইঞ্জিন আপনাকে পাত্তা দিতে চাইবে না।

কোথায় মাল্টি-টপিক?

আপনি যদি ব্যক্তিগত ব্লগ তৈরি করেন এবং সেখান থেকে আয়ের কোনো চিন্তা না করেন। তখন সেখানে মাল্টি-টপিক বা বহুবিষয় একজায়গায় আলোচনা করতে পারেন।

কারণ ব্লগটা কার কাজে আসলো-আসলো না তাতে আপনার কিছু যায় আসে না। কিন্তু যদি টাকা আয়ের কোনো চিন্তা থাকে তবে বহুবিষয় একজায়গায় আলোচনা করবেন না। কারণটা আগেই বলেছি- ট্রাফিক কম হবে।

ব্লগিংয়ের ক্ষেত্রে যত ট্রাফিক তত আয়। অর্থাৎ ট্রাফিক = টাকা।

সারকথা, আপনার ব্লগের ট্রাফিক ও টাকা আয়ের চিন্তা না থাকলে মাল্টি টপিক নিয়ে আলোচনা করুন।

মাল্টিটপিক বনাম সিঙ্গেল টপিক

ব্লগিং শুধুমাত্র মজা হিসেবে করলে আপনার যা খুশি লিখতে পারেন। কিন্তু কোনো বেনিফিটের জন্য করলে অবশ্যই একটা টপিকের উপর ফোকাস করে লিখুন। এতে ট্রাফিক পেতে সুবিধা হয়।

ব্লগিং করে টাকা আয় যত সহজ দেখায় অত সহজ নয়, আবার বেশি কঠিনও নয়। তবে ব্লগিংটা সঠিক নিয়মে করতে হবে।

যখন মাল্টিটপিক সাইট মনিটাইজ করতে যাবেন তখন কিছু সমস্যা তৈরি হয়। যেটি সিঙ্গেল টপিকে নাই।

কেন পাঠদের আকর্ষন করা কষ্টকর?

আপনার নিজেকে কিছু প্রশ্ন করুন:

  • কি দিয়ে মানুষকে ব্লগটি সাবস্ক্রাইব করাতে বাধ্য করবেন?
  • যদি আপনি রুপচর্চা টপিকের উপর আগ্রহী হন। তবে কোন ধরনের ব্লগে সাবস্ক্রাইব করেন এবং প্রতিদিন তাদের পোস্ট পড়তে যান? অবশ্যই যে ব্লগে রুপচর্চা নিয়ে আলোচনা করা হয়। আপনি কখনও চাইবেন না টেক টপিকের ব্লগকে সাবস্ক্রাইব করতে।
  • আপনি রুপচর্চা টপিকের জন্য একটা ব্লগে সাবস্ক্রাইব করলেন। কিন্তু পরে দেখলেন সেখানে টেক, রিলেশন ইত্যাদি হাবি-জাবি বিষয় আলোচনা করা হচ্ছে। আমার বিশ্বাস তখন আপনি ব্লগটা আনসাবস্ক্রাইব করবেন।

উপরের প্রশ্নোত্তরের পর বুঝতে পারেছেন, মাল্টিটপিকের ব্লগ কেন পাঠকের আকর্ষন ধরে রাখতে পারে না।

যখন কোনো টপিকের উপর আমরা সার্চ করি তখন আমাদের সামনে হাজার-লক্ষটা পেজ আসে।

আমি একজন ব্লগ পাঠক হিসেবে, এমন টপিকের ব্লগের উপর সাবস্ক্রিপশন করি যার উপর আমার ইন্টারেস্ট আছে। আমি কখনও এমন ব্লগকে সাবস্ক্রাইব করি না যারা র‌্যান্ডোম টপিকের উপর আলোচনা করে।

আমি একটা এসইও রিলেটেড ব্লগে সাবস্ক্রাইব করি। এবং সেখানে একদিন পড়ার সময় দেখলাম লাইফস্টাইল নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। আমি তখনই ব্লগটা বুকমার্ক হতে হটিয়ে দিই। করণ শেখার সময় কোনো ডিস্টারশন আমার পছন্দ নয়।

এজন্য নতুন ব্লগারদের সবসময় নির্দিষ্ট টপিকের উপর ব্লগিং করতে বলি। আরো বলি, যে টপিকটা শিখতে ও আলোচনা করতে বেশি ভালো লাগে সেটি নিয়ে কাজ করো।

মাল্টি টপিকে এসইও সমস্যা

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এসইও) একটি ব্লগকে ব্যাংক করাতে বা ভিজিটর পেতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু মাল্টিটপিকের ব্লগ এসইওর ক্ষেত্রে খুবই খারাপ পারফমেন্স করে।

ধরুন আপনি একটি সার্চইঞ্জিন অপারেট করছেন। আপনার কাছে ‘কীভাবে ফটো তুলতে হয়’ –এ কীওয়ার্ড এর দুটি ওয়েবসাইট আছে।

  1. এইটাই ফটোগ্রাফির সাথে ধর্ম, টেক, লাইফস্টাইল ইত্যাদি টপিকের উপর লেখা আছে।
  2. এই সাইটে শুধুমাত্র ফটোগ্রাফি বিষয় আলোচনা করা হয়ে থাকে।

আপনি সম্ভবত কোয়ালিটি কন্টেন্ট এর জন্য সাইট-২ কে আগে প্রাধান্য দেবেন। এরা শুধু ফটোগ্রাফির উপর লেখে এদের এই বিষয়ে কোয়ালিটি কন্টেন্ট লেখার সম্ভাবনা খুব বেশি।

গুগলসহ অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনগুলি একই কাজ করে থাকে। এজন্য সিঙ্গেল টপিকের উপর ব্লগের পোস্ট র‌্যাংক করার সম্ভাবণা খুব বেশি থাকে। উল্লেখ্য, দুটি পেস্টির কোয়ালিটি একই হলে।

গুগল ইউজার এক্সপেরিয়েন্স বোঝে। তারা সুচকের মাধ্যমে বুঝতে পারে আপনার পেজ পাঠক পছন্দ করছে কি না? তাছাড়া পোস্ট র‌্যাংকিং এ ডোমেইন অথোরিটির বিষটি দেখা হয়।

টাকা বানানো মাল্টি নিসে কেন চ্যালেঞ্জিং?

ব্লগের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করছি তা হল।

  • মাল্টিটপিক না সিঙ্গেল টিপক কোনটি দ্বারা বেশি টাকা আয় সম্ভব।

একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে।

  • ট্রাফিক হচ্ছে টাকা ইনকামের সাথে সরাসরি সমানুপাতিক। যার ট্রাফিক বেশি তার টাকা বেশি।

আমারা আলোচনার প্রথমে দেখেছি মাল্টি-টপিক বেশি পাঠক আকর্ষন বা ড্রাইভ করে না।

কিন্তু আলোচনার খাতিরে আমরা ধরে নিচ্ছি যে মাল্টিটপিক বেশি পাঠক ড্রাইভ করে। কিন্তু..

ধরুন, আপনি ক্যামেরার একটা কোম্পানী শুরু করেছেন। আপনার বিজ্ঞাপনী বাজেট কম। আপনার কাছে দুটি ব্লগ আছে…

  1. এখানে শুধুমাত্র ফটোগ্রাফি নিয়ে আলোচনা হয়। প্রতিমাসে ভিজিটর ২০,০০০ যারা পড়ে ফটোগ্রাফিতে তাদের আগ্রহ ১০০%।
  2. এই সাইটে ফটোগ্রাফিসহ লাইফস্টাইল, রান্না, টেক বিষয়গুলো আলোচনা হয়। প্রতি মাসে ৫০,০০০ ভিজিটর ভিজিট করে। যারা ভিজিট করে তার মধ্যে ফটোগ্রাফিতে আগ্রহ আছে ২০% লোকের।

আমার মনে হয় আপনি #০১ নম্বর সাইটকে বেছে নিবেন। কারণ এই সাইটে আপনার টার্গেটেড অডিয়েন্স আছে। কেন #০২ সাইটে বিজ্ঞাপন দিয়ে শুধু শুধু বেশি টাকা নষ্ট করবেন।

 কিভাবে ব্লগ টপিক নির্বাচন করব? – এই পোস্টটি পড়ালে সাঠক টপিক বাছাইয়ে আপনার অনেকটা সাহায্য হবে।

নিস ব্লগ তৈরির কিছু কঠিন দিক

একটি নির্দিষ্ট টপিকের উপর কাজ করতে গেলে কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। আপনি যখন নির্দিষ্ট কোনো টপিক বেছে নিবেন তখন সেটা দিয়ে অনেক লেখালিখি করতে হবে।

আপনাকে এই টপিকের উপর বিস্তার আলোচনার জন্য রীতিমতো লেখাপড়া করা লাগবে। অনেক সময় নষ্ট হবে একটি পোস্ট লিখতে।

আপনাকে সকল খুটিনাটি আলোচনার জন্য নিয়মিত গবেষণা করতে হবে। অনেক সময় সাব টপিকের কিছু বিষয় কঠিন লাগবে বা বুঝতে পারবেন না তখন সেটি নিয়ে লেখাপড়া করা লাগবে।

আপনাকে টপিক নির্বাচনে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হবে। যাতে আপনার টপিকের মার্কেট ভ্যালু ভালো হয় এবং কিওয়ার্ডের উপর যথেষ্ট সার্চভলিউম থাকে।

এমন টপিক কখনো নির্বাচন করবেন না যার সার্চভলিউম কম এই ধরুন ৪০-৫০ জন মাসে। এবং টপিকটা প্রফিটেবল হতে হবে তবেই ফিন্যান্সিয়ালি আপনি লাভবান হবে।

সিঙ্গেল টপিক ব্লগিয়ে টাকা ইনকাম খুব সহজ নয়। কিন্তু আপনি সঠিক টপিক ও লং টেইল কিওয়ার্ড এর মধ্যমে ব্লগকে র‌্যাংক করাতে পারবেন। এবং অনেক ভিজিটর পেতে পারেন।

পোস্টটির সম্পর্কে কোনো দ্বিধা বা প্রশ্ন থাকলে কমেন্টে জানান। কথা পেটে রাখবেন না পেট মোটা হয়ে যাবে। কোনোকিছু জানার থাকলে কমেন্টে বলুন।

Post Tags:-

প্রযুক্তির প্রতি চরম আকর্ষণ থেকেই টেলিকমিউনিকেশনে পড়ছি। প্রযুক্তির কঠিন বিষয়গুলি সহজভাবে মানুষকে বলতে খুবই ভাল্লাগে। এই ভালোলাগা থেকেই লেখালিখি শুরু। ওয়েব ডেভলপমেন্ট ও নেটওয়ার্কিং প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করা আমার নেশা ও পেশা।

মন্তব্য করুনঃ-