কিভাবে সঠিক ডোমেইন নাম নির্ধারণ করতে হয়।

লগিং এর কথা আসলেই প্রথমে ব্লগের নাম (বা ডোমেইন নেম) নিয়ে চিন্তা করতে হয়। ডোমেইন নেম হচ্ছে ব্লগের ব্রান্ড বা পরিচিতি। আপনি চাইলে ব্লগের ডোমেইন নেম পরিবর্তন করতে পারবেন। কিন্তু …..

1065 VIEWS

কিভাবে-ডোমেইন-নাম-নির্ধারণ--1024x576

ব্লগিং একটা অনেক বড় সফর। এখানে রাতারাতি কিছু করা সম্ভব নয়। আপনাকে লেগে থাকতে হবে। এবং আপনার পরিশ্রমের ফল হয়তো কয়েক বছরে পাবেন না। কিন্তু যদি মন লাগিয়ে কাজ করেন তাবে আশা করা যায় একসময় আপনি সফল হবেন। হয়ত এক বছরের মাথায় আপনার ব্লগিং থেকে একটা ভালো মানের আয় আসতে পারে।

ব্লগিং এর কথা আসলেই প্রথমে ব্লগের নাম (বা ডোমেইন নেম) নিয়ে চিন্তা করতে হয়। ডোমেইন নেম হচ্ছে ব্লগের ব্রান্ড বা পরিচিতি। আপনি চাইলে ব্লগের ডোমেইন নেম পরিবর্তন করতে পারবেন। কিন্তু এতে ব্লগসাইট ভিজিটর ড্রপের একটা ব্যাপক সম্ভাবনা থেকে যায়।

ব্লগিং এর মূল জিনিস ডোমেইন নেম নির্বাচন করার কিছু উপায় আলোচনা করব। কারণ প্রত্যেক ব্যবসার মতো ব্লগিং এ ব্রান্ডই সবকিছু।

কিভাবে সঠিক ডোমেইন নাম নির্ধারণ করতে হয়।

সাধারন নাম নাকি কিওয়ার্ড ভিত্তিক:-

ব্লগের জন্য সাধারণ নাম দেব না কিওয়ার্ড ভিত্তিক নাম কোনটা ভালো হবে? এমন প্রশ্নের সহজ জবাব দেয়া সম্ভব নয়।

সাধারন নাম বলতে যেমন- bnLite.com এই নামটা কিন্তু কোনো নিসের সাথে সম্পর্কযুক্ত নয়। এই নাম দিয়ে অনলাইনে (বা ইন্টারনেটে) যেকোনো ওয়েবসাইট চালানো যাবে। এটা সাধারণ নাম বলে থাকে। কিওয়ার্ড ভিত্তিক নাম যেমন- problogger.com এটা দিয়ে বোঝা যায় সাইট দ্বারা ব্লগিংয়ের কোনো টিপস ও ট্রিকস শেয়ার করা হয়।

সাধারণ নাম দিয়ে ডোমেইন করলে আপনার জন্য সবকিছু আন-লকড হয়ে যায়। যেমন ধরুন google.com এই নামের জন্য তারা সকল রকমের সার্ভিস একসাথে দিতে পারছে। কিন্তু যদি নামটা seachEngin.com হত তাহলে তাদের কোম্পানির রেসি্ট্রকশন চলে আসতো। এখনে নামের কারণে যেকেউ বুঝে নিয়ে এটা একটা সার্চইঞ্জিন এবং এখানে শুধুমাত্র সার্চ করা হয়। এই কারণে কোম্পানি তাদের ইমেল সেবা সহ অন্যন্য সেবা এই নামে দিতে পারত না।

তাই আপনার যদি মনে হয় আপনি অনেক রকমের সার্ভিস দিবেন তবে সাধারণ নাম নির্বাচন করুন। সাধারণ নাম থাকলে আপনার ব্রান্ডকে আপনি যেকোনো ব্যবসার দিকে মুভ করাতে পারবেন। তাছাড়া সাধারণ নামই ভালো যেকোনো ব্যবসার জন্য। কারণ আপনার ব্যবসার পথে ডোমেইন বাধা হওয়ার কোনো সম্ভাবনায় থাকলো না।

যদি একান্ত ছোট কোনো নিস নিয়ে কাজ করতে চান। এবং আপনার সিদ্ধান্তে অবিচল থাকতে পারবেন তবে কিওয়ার্ড ভিত্তিক নাম দিতে পারেন। কিওয়ার্ড ভিত্তিক নাম যে এসইওতে সাহায্য করে এমন কথার কোনো ভিত্তি নেই। তাবে দর্শক বা পাঠকের কাছে পরিচিতি জন্য ও পাঠকের সহজে মনে রাখার জন্য কিওয়ার্ড ভিত্তিক নাম দিতে পারেন। আমার মনে হয়, কিওয়ার্ড ভিত্তিক নাম মনে থাকলে সাধারণ নাম মনে থাকবে না কেন?

ডোমেইন নেম কি পরে পরিবর্তন করা যায়:-

ডোমেইন নেম পরিবর্তন করা যায় না একথা বলব না। তবে এই বিষয়টি নিয়ে আমাদের বিস্তার আলোচনার দরকার আছে বলে আমি মনে করি।

কিছু প্রাজাতির মানুষ আছে যারা ভাবে এখন যেকোনো একটা নাম দিয়ে শুরু করি পরে পরিবর্তন করে নেব। তাদের জন্য কিছু কথা।

বর্তমানে ওয়ালটন কোম্পানি বাজারে ব্যপক প্রচলিত একটি নাম বা ব্রান্ড। এটি বাংলাদেশে যথেষ্ট জনপ্রিয় একটি ব্রান্ড বলে আমি জানি। এখন কোম্পানিটি তাদের নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিল এবং নামটা পরিবর্তন করেও ফেলল।

নাম পরিবর্তনের ফলে কিন্তু ব্যবসায় একটা বড় পরিবর্তন আসবে। তাদের মার্কেটিং খরচ বাড়বে কারণ নতুন নামের সাথে মানুষকে পরিচিতি করাতে হবে। যদি কোম্পানিটি নতুন নামের সাথে মানুষেকে পরিচিত করতে না পারে তবে ব্রান্ড রাতারাতি শেষ। কারণ মানুষ সেটাকে নতুন কোম্পানী ভাববে।

আপনার ডোমেইন পরিবর্তন কিন্তু একই ঘটনা ঘটাবে। যেহেতু বাজারে আপনার একটা সুনাম আছে। এখন হঠাৎ নাম পরিবর্তন করার ফলে আপনি আপরিচিত ব্যাক্তিতে পরিণত হলেন। এবং আপনাকে একই সাথে একটি সাইটের জন্য দুটো ডোমেইনের খরচ বহণ করতে হবে। কারণ পুরাতন যে ব্যাকলিংক ও লিংক আছে তাদের রিডাইরেক্ট করে নতুন সাইটে আনতে হবে। এটাকে মার্কেটিং বলতে পারেন, বিষয়টি এমন পুরাতন কোনো কাস্টমার আসলে তাকে ঘটা করে বলা সাইটের নাম পরিবর্তন করে ওমুক রাখা হয়েছে। আবার নতুন করে লিংক বিল্ড করা সহ প্রচুর ঝামেলা হাজির।

আমি বলতে চাই কেন এত ঝামেলা পোহাবেন ভাই। তাছাড়া সঠিকভাবে সবকিছু করতে ব্যর্থ হলে আপনার ব্রান্ড রাতারাতি ধ্বংশ।

তবে কউ ডোমেইন নাম যে পরিবর্তন করে না এমটা নয়। অনেক বড় ফ্রিল্যন্সিং মার্কেটপ্লেস odex.com যারা নাম পরিবর্তন করে বর্তমানে Upwork.com রেখেছে।এখনও odex.com ডোমেইন তারা কিনে রেখেছে। কারণ অনেকে পুরাতন নামটা দিয়ে খোজে, তখন রিডাইরেক্ট হয়ে upwork.com এ চলে আসে। তারা সফলভাবে ডোমেইন নাম নাম পরিবর্তন করতে পেরেছে বলে ট্রাফিকে কোনো সমস্যা হয়। আপনিও বুঝে ও ডেভলপারদের পরামর্শ মতো কাজ করলে আসা করা যায় সফলভাবে ডোমেইন নেম পরিবর্তন করতে পারবেন। এবং সাইটের ট্রাফিকের কোনো সমস্যা হবে না।

বুঝেশুনে ডোমেইন নাম ঠিক করুন। ঝামেলাবিহীন ব্যবসা করুন।

আপনার একটাই পরামর্শ দেব

কিভাবে ডোমেইন নাম সিদ্ধান্ত:

ডোমেইন নাম নির্বাচনের জন্য আরো কিছু বিষয় মাথায় রেখে করতে হবে। সেগুলো –

সবসময় .com –

মানুষের কাছে ব্রান্ডের নামটা আসল কথা। সাইটের শেষে এক্সটেনশন কি আসে সেটার দিকে কেউ খেয়াল করে না। পরে তারা গুগলে শুধু (ব্রান্ড নেম + .com) টাইপ করে দেয়। এতে সাইটের একটা বড় অংশের ট্রাফিক হাতছাড়া হয়ে যায়।

ভিজিটর যেহেতু চায় আপনার ওয়েবসাইট .com  নামে থাকুক, সে কথা মনে রেখে ডোমেইন কিনুন। আমি নিজেও .com ডোমেইন এর বড় ভক্ত।

প্রায় প্রতিটি কোম্পানী তাদের ব্রান্ডের নামে  .com রেখে মার্কেটিং করে। এতে বাজারে  .com এর একটা আলাদা ভ্যালু (বা মূল্য) যোগ করে।

বিক্রয়.কম, প্রথমআলো .কম অনেক বড় একটা অনলাইন মার্কেট। তারা তাদের প্রচারের ক্ষেত্রে .কম রেখেছে। এতে তাদের মার্কেটিং এর একটা বড় লাভ হচ্ছে।

তাছাড়া অনেকে পরামর্শ দিয়ে থাকে .com না পেলে .org বা  .net নিতে। কিন্তু আমি দিই না, আমি বলি .com নিতে। অনেকসময় আপনার পছন্দের নামের .কম ভার্সন পাওয়া না গেলে শব্দের আগে পরে কিছু যোগ করে নিন। যেমন আপনি কার.কম(Car.com) একটা ডোমেইন নাম রেজিস্টার করতে চান আপনার গাড়ির কোম্পানির জন্য কিন্তু এটা আগে থেকে রেজিস্টার। তখন সিগমা কার.কম(Sigma Car.com) অথবা কার পাই.কম(Car Pi.com) রাখেতে পারেন।

আবার অনেক সময় ডোমেইন ব্রোকাররা ডোমেইন ক্রয় করে রাখে। যেগুলো প্রিমিয়াম ডোমেইনের বাজারে পাবেন।

আমার মনে হয় পছন্দের ডটকম ডোমেইনটি $1000ডলার দিয়ে কিনলে আপনার কোনো বড় ক্ষতি হবে না। বরং লাভই হবে।

সবশেষে একটা কথা যদি লং টার্ম অনলাইন বিসনেস করতে চান তবে ডটকম ডোমেইন ক্রয়ের উপর জোর দিন। এটা বিসনেস ভ্যালু বাড়াবে, মার্কেটিং সহজ হবে, দর্শকদের কাছে ডোমেইন নেমটা (তার মানে বিসনেস) জনপ্রিয়তা পাবে।

প্রিমিয়াম ডোমেইন নাম:

আমি এখানে আপনাকে প্রিমিয়াম ডোমেইন নাম নিতে উৎসাহিত করব। আমি মনে করি যেটা আমার করা উচিৎ নয়। কিন্তু আপনাদের বিসনেস প্রফিটের জন্য এটা করতে হচ্ছে। আমি সবসময় .com আলোচনার সময় ডটকম ডোমেইনের সুবিধা নিয়ে বলেছি।

এখন আপনি ডটকম ডোমেইন নিতে আগ্রহী। কিন্তু আপনার পছন্দের নামটি অলরেডি রেজিস্টার রয়েছে। হ্যা এমটি হওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। বর্তমানে অধিকাংশ পছন্দমূলক শব্দগুলো ডোমেইন আকারে রেজিস্টার। আপনার পছন্দের ডোমেইন নামটা আপনার একন্ত দরকার এবং আপনি শব্দের আগে পরে কিছু যোগ করতে চান না।

তখন আপনাকে প্রিমিয়াম ডোমেইন রেজিস্টার ওয়েবসাইট গুলোতে খুজতে হবে। বিভিন্ন ডোমেইন ব্রোকাররা আগে থেকে ট্রেন্ডএবল ডোমেইন নেম কিনে রাখে। এবং এই প্রিমিয়াম ওয়েবসাইটে তাদের পছন্দের দামটি দিয়ে রাখে। আপনি সেই দাম দিয়ে ডোমেইনটি নিতে পারেন। আমি অগেও বলেছি বিসনেস এর সুবিধার্থে ১০০০ ডলার দিয়ে ডোমেইন বিনলে তেমন ক্ষতি হবে না।

প্রিমিয়াম ওয়েবসাইট লিস্ট-

  • Sedo.com
  • Afternic.com
  • HugeDomain.com
  • BuyDomain.com

এসব সাইটে ডোমেইন রিসেল করা হয়। সাধারণত এসব সাইটের ডোমেইন এর দাম $৯০-$১০০,০০০ ডলার হয়ে থাকে। আপানার বিসনেস বাজেট, প্রফিট সবকিছু বিবেচনা করে ডোমেইনটি কিনবেন। যেন ডোমেইন কিনতে আবার ব্যবসার পুরো টাকাটা চলে না যায়।

এমনিও হতে পারে আপনার ডোমেইন নামটা প্রিমিয়াম ওয়েবসাইটে পেলেন না। কারণ ঐটা হয়ত কেউ তার ব্যবসার জন্য কিনেছে এবং অলরেডি তার ওয়েবসাইটে ব্যবহার করছে। এখন একটা উপায় বেচে আছে ডোমেইনটি পাওয়ার তা হল সরাসরি ডোমেইনের মালিকের সাথে যোগাযোগ করা।

কিভাবে যোগাযোগ করব? গুগলে ডোমেইন সার্চ করুন একটি সাইট পাবেন। সেখান থেকে মালিকের ই-মেইল বা এড্রেস পাবেন। সরাসরি তাকে বলুন ডোমেইনটি কিনতে চান। ভালো টাকা অফার করুন সে দিলেও দিতে পারে। যদি না দেয় তাহলে কিছু করার নেই, অন্য নাম ভাবুন।

ডোমেইন ফোন টেষ্টে ফেল করতে পারে:-

ডোমেইন ফোন টেষ্ট হল আপনার ডোমেইন সহজে খুজে বের করার একটা স্মার্ট রাস্তা।

আপনার ডোমেইন নামটা যদি উচ্চরনে জটিলতা থাকে। এবং সহজে বানান করা না যায় বা বানানে ভুল হওয়ার সম্ভাবণা খুব বেশি থাকে তবে ডোমেইন ফোন টেষ্টে ফেল করবে।

ডোমেইন ফোন টেষ্ট হল আপনি ফোনে আপনার কোনো এক বন্ধুকে সাইটের নামটা বললেন। কিন্ত বানান বলে দিলেন না। এখন আপনার বন্ধু নিজে বানান করে কোনো ভুল না করে সাইটে ঢুকতে পারে তবে ডোমেইন ফোন টেষ্টে পাশ করবে।

যদি বন্ধুটি বানান ভুল (spelling mistake) করে তাহলে সঠিক ডোমেইন নামটা লিখতে ব্যার্থ হল, সাইটে ঢুকতে পারলো না তাহলে এই টেস্টে আপনার ডোমেইন নেম ফেল করবে।

আমি ফোনে কাউকে বলি “visitSawati” আমার সাইটের নাম তুমি একটু ভিজিট করে দেখ। সে আমার কাছে বানান জানা ছাড়া ঢুকতে পারবে না। কারণ এখানে নামের বানান ভুল হওয়ার সম্ভাবনা ৮০%। কারণ এটা কমন নাম নয়। এটার বানান করা যে কারো পক্ষে কঠিন।

কিন্তু যদি বন্ধকে বলি “bnLite.com” তাহলে সে বানান ভুল করবে না। কারন এটা সহজ এবং কমন উচ্চরন।

বিষয়টা নিয়ে এখনি সতর্ক হোন। ডোমেইন ফোন টেষ্টে পাস না করা সাইটের একটা মারাত্নক সমস্য সমস্যা। ট্রাফিক বিভ্রান্ত হবে ও পরে চাইলেও আপনার সাইটে ফিরতে পারবে না।

কপিরাইট ভঙ্গ এড়ানো- ইন্টারনেটে কিছু কিছু ডোমেইন নাম আছে যেটা আপনি ব্যবহার করতে পারবেন না। যদি করে থাকেন তবে দ্রুত অফিসিয়াল চিঠির জন্য প্রস্তুতি নিন। কারণ আপনার নামে কপিরাইট আইন ভঙ্গের অভিযোগ আসতে চলেছে।

ব্যপারটা বুঝিয়ে বলি, ওয়ার্ডপ্রেস কোম্পানীর WordPress নাম দিয়ে আপনি ডোমেইন নেম রেজিস্টার করতে পারবেন না। তারা কপিরাইট রুল করেছে যে তাদের ওয়ার্ডপ্রেস নামে তাদের ডোমেইন বাদে আর কারোর ডোমেইন থাকবে না।

আপনি যদি WordPress.in নামের কোনো ডোমেইন রেজিস্টার করান তবে কপিরাইট ভঙ্গ হবে এবং তার শাস্তি পেতে হবে। তবে ওয়ার্ডপ্রেস তাদের WP নামটা আপনাকে ব্যবহারের অনুমতি দেয়। আপনি চাইলে WP ‍দিয়ে ডোমেইন রেজিস্টার করাতে পারবেন। এতে কোনো কপিরাইট আসবে না।

হাইপেন এড়িয়ে চলা-

যদি এমন কোনো নিস নিয়ে কাজ করতে চান যার কিওয়ার্ড এ হাইপেন উপস্থিত। এবং এটা স্বাভাবিক যে আপনি হাইপেন সহ ডোমেইন রেজিস্টার করতে চান।

এটা কিছু বছর আগেও কোনো সমস্যার কারণ ছিলো না। কিন্তু বর্তমানে এসইও এর ক্ষেত্রে ব্যপক প্রভাব পড়া শুরু করেছে।

হাইপেন দেয়া ডোমেইন এর ভিন্ন পথ ভাবতে। সার্চইঞ্জিনগুলোতে হাইপেন দেয়া ডোমেইন এর তুলনায় হাইপেন নেই এমন ডোমেইন দ্রুত পেজ র‌্যাংক করাচ্ছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছে

অনেকসময় কেউ কেউ পরামর্শ দিয়ে থাকে নিসের সাথে রিলেটেড এমন ডোমেইন নিতে। এটা একটা বড় ভুল সিদ্ধান্ত হতে পারে। যেমন আপনার ব্লগটা টেক রিলেটেড। এখন ডোমেইন নিতে হবে ’টেক’ এর সাথে ’ব্লগ’, ’টিপস’ এমটা।

কিন্ত বর্তমাতে টেকব্লগ, টেকটিপস, টেকটক,টেকটুল এমন নামের অনেক সাইট ইন্টারনেটে রয়েছে। আমার মতে এসব শব্দ ব্রান্ডে ব্যবহার না করা ভালো। অন্যভাবে চিন্তা করুন, ব্রান্ডের নামে ভিন্নতা আনুন, দর্শকের ব্রান্ডের নাম নিয়ে কনফিউশন তৈরি না হয়।

বিষয়টা এমন, কেউ কাল রাতে আপনার ব্লগ ’টেকট্রিকস’ পড়ল পরেরদিন ভাবল ওহ কালকের ’টেকটিপসের’ আর্টিকেলটা দারুন ছিল। এখন টেকটিপসের আরেকটা আর্টিকেল পড়ি। ব্যস আপনার ট্রাফিক টেকটিপস.কম সাইটে ঢুকে গেল। আপনার ব্লগটা বড় ক্ষতির সম্মুখিন হল।

এক্ষেত্রে নিস নামের সাথে ব্লগের নাম না রাখা ভালো হবে। আরেকটু জানতে- ডোমেইন নেম হিসেবে আপনার নাম দেয়া উচিৎ বা না?

Post Tags:-

প্রযুক্তির প্রতি চরম আকর্ষণ থেকেই টেলিকমিউনিকেশনে পড়ছি। প্রযুক্তির কঠিন বিষয়গুলি সহজভাবে মানুষকে বলতে খুবই ভাল্লাগে। এই ভালোলাগা থেকেই লেখালিখি শুরু। ওয়েব ডেভলপমেন্ট ও নেটওয়ার্কিং প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করা আমার নেশা ও পেশা।

মন্তব্য করুনঃ-