ফেসবুকে আয় করার পদ্ধতি -২০২১ | ফেসবুক থেকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়।

ফেসবুকে টাকা ইনকাম করার উপায় ২০২১ এর সবকিছু। ফেসবুক থেকে আয় করার ১৮টি পদ্ধতি নিয়ে বিস্তারিত পড়ুন। Ways to make money on Facebook in Bengali

1095 VIEWS

ফেসবুকে আয় করার উপায়

সবারই একটি কমন প্রশ্ন: ফেসবুক থেকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়? ফেসবুক থেকে কি আসলে আয় করা যায়? আমি এখানে এই দুটি প্রশ্ন নিয়ে কথা বলব। How to make money from Facebook in bengali

ফেসবুক থেকে কি আয় করা যায়? এই প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে অবশ্যই যায়। সবচেয়ে মজার বিষয় প্রতিদিন আমরা দুই-তিন ঘন্টা ফেসবুকে ব্যায় করি। এই সময়কে কাজে লাগিয়ে ফেসবুক থেকে আয় করতে পারি।

ফেসবুকে যেহেতু ২.৪ বিলিয়নের মতো ইউজার রয়েছে, তাই এটি থেকে ভালোমানের আয় করতে পারবেন। শুধু একটু ধৈয্য ও পরিশ্রমের দরকার, ফেসবুক থেকে আয় করার জন্য।

১. বিশেষজ্ঞ হিসেবে গ্রুপে জয়েন করুন

ফেসবুকে আয় করার জন্য এটি খুবই ভালো একটি উপায়। আপনি যদি কোনো বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হন তবে সে বিষয়ের যেকোনো গ্রুপে যোগ দিন।

উদাহরণ: করিম একজন এপস ডেভলপার। সে এশিয়ার এপস ডেভলপার কমিউনিটিতে যোগ দিল। সেই কমিউনিটিতে রহিম নামের একজন এপসের একটা সমস্যা নিয়ে পোস্ট দিলো, করিম সেটার সমাধান করে দিল।

করিম তো ফ্রিতে সমাধান করে দিল এখানে কি লাভ হল? এই প্রশ্ন যদি আপনার মনে আসে তাহলে আপনি খেয়াল করে পড়ছেন। চলুন জেনে নেয়া যাক, লাভটা কি ছিলো।

ঐ গ্রুপে রহমান নামের একজন ব্যাক্তি ছিলো যার একটি এপস লাগবে। সে করিমের সমাধান করার দক্ষতা দেখলো এবং পরবর্তী প্রজেক্টে করিমকে হায়ার করল। করিমের লাভটা এবার হল। এরকম বহু কাস্টমার পেতে পারেন গ্রুপের মাধ্যমে।

How to make money from Facebook in bengali. ফেসবুকে টাকা ইনকাম করার উপায়

২. লোকাল ব্যবসার প্রচার করুন ফেসবুকে

আপনার এলাকায় আপনার একটি হোটেল আছে। আপনি খাবার হোম ডেলিভারির মাধ্যমে কিছু টাকা আয় করতে চান?

ফেসবুকের আপনার লোকাল গ্রুপে জয়েন করুন। সেখনে গ্রুপের নিয়ম মেনে আপনার সার্ভিসটির বিষয়ে সুন্দর করে পোস্ট করুন। দেখবেন কাস্টমারের লাইন লেগে যাবে।

উদাহরনের মাধ্যমে বিষয়টা পরিষ্কার করা যাক, রকি টেলিটক কোম্পানির কাছ থেকে কিছু সিম নিয়ে কাস্টমারের কাছে বিক্রি করবে। সে তার সিম বিক্রির টার্গেট পুরণ করতে পারনে কমিশন পাবে।

রকির কোনো দেকান নাই, তার বাড়ি যশোর, সে তার এলাকার ৫কিলোমিটারের মধ্যে হলে বাসায় গিয়ে সিমটি দিয়ে আসতে পারবে।

রকি যদি যশোরের কোনো লোকাল গ্রুপে পোস্ট করে যে,

এই এই এলাকার ভিতর যাদের টেলিটক সিম লাগবে আমার সাথে যোগাযোগ করুন। বাসায় গিয়ে সিমের রেজিস্ট্রেশন করে দেয়া হবে।

রকি

এভাবে সে অনেক কাস্টমার পেতে পারে লোকাল গ্রুপের মাধ্যমে।

ফেসবুকে আয় করার পদ্ধতির ভিতর অনেক কার্যকারী পদ্ধতি এটি। আপনি কাজে লাগিয়ে দেখতে পারেন। ফেসবুকের মাধ্যমে লোকাল বিজনেস বাড়ানোর এরচেয়ে ভালো পদ্ধতি ফ্রিতে আর হতে পারে না।

৩. ক্লাইন্ট ফেসবুকের সার্চ ফানেল

ফেসবুক শুধু সোস্যাল সাইট হিসাবেই নয়, অনেকে এটিকে সার্চইঞ্জিন হিসেবে ব্যবহার করে। আপনি কি কখনও ফেসবুকের উপরে থাকা সার্চ অপশনটাকে খেয়াল করেছেন।

ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে সার্চ ফানেলের ব্যবহার
সার্চবার

আপনি কি কখনও ভেবেছেন মানুষ এই সার্চ অপশনটা ব্যবহার করে কোনোকিছু সার্চ করতে পারে।

ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে সার্চ ফানেলের ব্যবহার
সার্চ ফানেলের ব্যবহার

ধরুন, একজন করিম তার ডিজিটাল মার্কেটার লাগবে। সে কিন্তু লোকাল মার্কেটে ডিজিটাল মার্কেটার খোজার জন্য ফেসবুকে সার্চ করতে পারে। এবং সেখান থেকে কাউকে দিয়ে তার কাজটা করাতে পারে। তাই আপনার ব্যবসার ক্লাইন্ট পেতে ফেসবুকের সার্চ ফানেলটাকে ব্যবহার করতে পারেন।

৪. আপনার ওয়েবসাইটের প্রমোশন করুন

আপনার ওয়েবসাইটের ট্রাফিক বাড়াতে ফেসবুককে কাজে লাগাতে পারেন। আপনার ব্লগের টপিকের সাথে মিলে যায় এমন সব গ্রুপে জয়েন হোন।

গ্রুপের লোকদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে দেন। তাদের বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অফার প্রদান করুন। যেমন:- আপনার ব্লগে এফিলিয়েট লিংক আছে, সেটার মাধ্যমে যদি কেউ কম্পিউটার কেনে তবে ১০০০ টাকা ক্যাশব্যক পাবে।

বিভিন্ন গ্রুপে গিয়ে এইভাবে পোস্ট করুন:- যদি কারো কম্পিউটার কেনার দরকার হয়, আমার ব্লগের এই লিংকে ক্লিক করুন। বি:দ্র আমার রেফারেল লিংকের মাধ্যমে কিনলে ১০০০ টাকা ক্যাশব্যক পাবেন।

আপনার ব্লগ পোস্টের প্রমোশনের জন্য এর থেকে ভালো উপায় আর কি হতে পারে!!

৫. ব্লগ কন্টেন্ট এর আইডিয়া নিন

আপনি হয়তো নতুন ব্লগিং শুরু করতে অথবা ব্লগের নতুন সেকশন চাচ্ছেন ! কন্টেন্ট এর আইডিয়া পাচ্ছেন না। বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপের ব্যবহার করতে পারেন।

বিভিন্ন ব্লগিং কমিউনিটিতে যোগদান করে, তাদের রুল মেনে পোস্ট করুন। দেখবেন শত শত কন্টেন্ট আইডিয়া পেয়ে যাবেন।

How to make money from Facebook in bengali. ফেসবুকে টাকা ইনকাম করার উপায়

৬. ফেসবুক চ্যাটবট তৈরি করতে পারেন

বিপণন মাধ্যম হিসাবে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারকে ঘিরে নিয়মকানুনগুলি ক্রমাগত বিকশিত হচ্ছে, চ্যাটবটগুলির চাহিদা ক্রমাগত বাড়ছে।

আপনার ইমেল তালিকার বিকল্প হিসাবে বিবেচনা করে এবং আপনি ময়েন চ্যাট বা চ্যাটফুয়ালের মতো সার্ভিসগুলির মাধ্যমে যদি এগুলি নির্মাণের দক্ষতা অর্জন করতে পারেন।

তবে আপনি এটি অন্য ব্যবসায়গুলিতে একটি পরিষেবা হিসাবে অফার করতে পারেন।

এগুলি প্রায়শই পাঠ্যক্রমের একটি সিরিজ সরবরাহ করে, বা ফল বা সুপারিশ ছড়িয়ে দিতে এআই বা গ্রাহক ইনপুট ব্যবহার করে।

উদাহরণস্বরূপ, আমি একটি জরিপ বট তৈরির জন্য একজন ফ্রিল্যান্সার ভাড়া নিয়েছি যা গ্রাহকরা কীভাবে কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন তার ভিত্তিতে প্রস্তাবনা দেয়।

এখন সেই লোকেরা আমার ম্যাসেঞ্জার তালিকায় রয়েছে, যেখানে আমি ব্যবসার বার্তা প্রেরণ করতে পারি এবং একটি চিরাচরিত ইমেল নিউজলেটারের তুলনায় উল্লেখযোগ্যভাবে অনেক ভালো মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করতে পারি।

৭. বিক্রি করতে ফেসবুক মার্কেটপ্লেসের ব্যবহার করুন

Facebook তাদের সাইটে মার্কেটপ্লেসের একটি অপশন রেখেছে। আপনি এখানে বিভিন্ন জিনিকের বিজ্ঞাপন দিয়ে সেটি খুব সহজে বিক্রি করতে পারেন।

ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে ফেসবুক মার্কেটপ্লেস
ফেসবুক মার্কেটপ্লেস

ফেসবুক Marketplace কিন্তু ফেসবুক লোকাল গ্রুপের মতো নয়। এখানে সবাই এক্সেস পায়, তাই আপনার পণ্য কোন কোন এলাকার ভিতর হলে ডেলিভারি দিতে পারবেন উল্লেখ করুন।

৮. বন্ধুকে রেফার করে আয় করুন

মার্কেটিংয়ের জগতে সবচেয়ে কার্যকর মার্কেটিং পলিসি মাউথ মার্কেটিং। কোম্পানীরা এটা খুব ভালোভাবে বুঝে গেছে। তাই বন্ধুদের তাদের সার্ভিসে রেফার উইথ ফ্রেন্ড নামের আপশন রাখে।

অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের আয়ের এপস ও বিভিন্ন অনলাইন শপ রয়েছে, যারা রেফার উইথ ফ্রেন্ড মার্কেটিং ব্যবহার করে। তাদের থেকে রেফারেন্স লিংক নিয়ে বন্ধুকে দিতে পারেন বা গ্রুপে রেফারেন্স লিংক শেয়ার করতে পারেন।

যতজন ওই রেফার লিংক ব্যবহার করবে, আপনি তাদের থেকে কমিশন পাবেন।

How to make money from Facebook in bengali. ফেসবুকে টাকা ইনকাম করার উপায়

৯. সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার

সোস্যাল মিডিয়া আছে এবং ভবিষ্যতে খুব তাড়াতাড়ি এর বিলুপ্তি ঘটবে না। আপনি সোস্যাল মিডিয়া বিষয়ে এক্সপার্ট হতে পারেন।

ফেসবুক সম্পর্কে ভালো জ্ঞান ব্যবহার করে সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার হতে পারেন। বিভিন্ন সেলিব্রেটি ও কোম্পানী আছে যাদের ফেসবুক পেজ ও গ্রুপ ব্যবস্থাপনার জন্যে লোক নিয়েগ দেয়।

আপনি তাদের একাউন্ট দেখভাল করে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারেন।

তবে সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার হওয়ার জন্য সোস্যাল সাইট ছাড়াও আরো কিছু বিষয়ে জ্ঞান লাগে।

যেমন:- সামান্য গ্রাফিক্স ডিজাইন, ভিডিও এডিটিং ইত্যাদি। (প্রো: টিপস:- মার্কেটিং ডিপার্টমেন্টে আছে LinkedIn এমন ব্যক্তিদের সাথে পরিচিত হন।)

কিভাবে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা যায়earn money on facebook

১০. চাকরি খুজুন ফেসবুকে

নতুন চাকরি খোজার জন্য ফেসবুক জব ফিচারটাকে ব্যবহার করতে পারেন।

ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে চাকরি খুজুন ফেসবুকে
চাকরি খুজুন ফেসবুকে

বিভিন্ন কোম্পানী তাদের কোম্পানীর বিভিন্ন পোস্টের জন্য চাকরি বিজ্ঞাপণ ফেসবুকের মাধ্যমে দিয়ে থাকে। আপনি এই জব ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে আপনার আশেপাশের সকল চাকরির বিজ্ঞাপণ দেখতে পারেন।

এবং ফেসবুকের মাধ্যমেই সেগুলোতে আবেদ করতে পারবেন।

১১. ফেসবুকে চাকরি নিন

ফেসুবক একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানি, পৃথিবীর প্রায় সব জায়গা থেকে তারা লোক নিয়োগ দেয়। আপনি সরাসরি তাদের কোম্পানীতে চাকরি নিতে পারেন।

ফেসবুকে চাকরির নেয়ার জন্য ফেসবুক ক্যারিয়ার পেজে ভিজিট করতে পারেন।

কিভাবে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা যায়earn money on facebook

১২. ‘বাগ বাউন্টি‘ হিসাবে ফেসবুক ফেসবুক থেকে আয়

ইন্টারনেটের কোনোকিছু পারফেক্ট নয়। সবকিছুর ভিতরে কিছু না কিছু দুর্বলতা আছে। ফেসবুক ওয়েবসাইট ও এপসের ভিতরের দুর্বলতা ধরার জন্য ফেসবুকের বাগ বাউন্টি প্রোগ্রাম।

আপনি যদি তাদের ওয়েবসাইট বা এপসে কোনো দুর্বলতা ধরতে পারেন, তাদেরকে বাগ বাউন্টি প্রোগ্রমের মাধ্যমে ডিটেইলসে বলুন।

বগা বাউন্টি প্রোগ্রমের সর্বোনিম্ন ৫০০ ডলার দেয়। আর সর্বোচ্চ এমাউন্টের কোনো সংখ্যা উল্লেখ করা হয়নি।

১৩. আপনার প্রাডাক্টের প্রচার করুন

এসইও এক্সপার্ট হিসেবে আপনার একটি কোর্স আছে! আপনি চাইলে ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপ বা পেজের মাধ্যমে কোর্সের প্রচার করতে পারেন।

ফেসবুকে প্রতিদিন কয়েক মিলিয়ন ট্রাফিক ড্রাইভ করে।

ফেসবুক থেকে টাকা আয়ের জন্য শুধুমাত্র তাদের এটেনশন দরকার। আপনার সার্ভিসের জন্য ক্লাইন্ট খুজে পাওয়ার খুবই ভালো একটি মাধ্যম হতে পারে।

কিভাবে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা যায়earn money on facebook

১৪. অন্যের প্রডাক্টের প্রচার করুন ( অ্যাফিলিয়েট )

যদি আপনার নিজের কোনো পণ্য না থাকে, তবুও ফেসবুক ব্যবহার করে টাকা আয় করতে পারবেন এফিলিয়েট করে।

আপনি কোনো কোম্পানীর কাছ থেকে এফিলিয়েট লিংক নিবেন; সেটা ফেসবুকে আপনার প্রফাইল, পেজ বা গ্রুপে প্রচার করার মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন।

যেমন:- আমি amazon থেকে একটি হেডফোন প্রচারের জন্য রেফার লিংক নিলাম। সেখানে একটি কন্ডিশন হলো আমার রেফার লিংকে কেউ কিছু কিনলে ৩% ছাড় দেয়া হবে; এবং প্রতিটি সেলে আমাকে ৳২০০ টাকা করে দিবে।

এখানে কিন্তু ক্রেতা, আমি এবং এমাজন সবাই উইন উইন; মানে সবারই লাভ। এই ধরনের এফিলিয়েট করলে বিক্রি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে এবং বেশি বিক্রি বেশি লাভ।

ফেসবুকের মাধ্যমে আয় করার জন্য এটা একটি শেষ্ঠ পন্থা; এভাবে ফেসবুক থেকে প্রচুর টাকা আয় করা যায়।

facebook থেকে টাকা আয় করার উপায়।

১৫. ড্রপশিপিং বিজনেস

ড্রপশিপিং ব্যবসা করতে যে ওয়েবসাইট লাগবে বা ওয়েবসাইট বাদে ড্রপশিপিং করা যাবে না ধারণাটা ভুল। ওয়েবসাইটের অবর্তমানে ফেসবুক পেজ দিয়েই ড্রপশিপিংয়ের ব্যবসা করতে পারেন।

ধন্যবাদ অ্যামাজনকে, আপনার অর্ডার নেয়ার পর অ্যামাজনের কাছে সেটাকে প্লেস করে দেন। তারা সেটা তৈরি থেকে. বাড়িতে পৌছে দেয়া পর্যন্ত দায়িত্ব তাদের।

ফেসবুক প্রফাইল বা পেজের মাধ্যমে ওর্ডার নিয়ে ড্রপশিপিং করতে পারেন।

১৬. পেজ মনিটাইজেশন করে ফেসবুকে আয়

আমি জানি, আপনারা এই পয়েন্টার খোজ করছিলেন। তো চলুন জেনে নেয়া যাক ফেসবুক পেজ কিভাবে মনিটাইজেশন করতে হয়।

  • আপনার নিজের একটি ফেসবুক পেজ থাকতে হবে। ফেসুবক পেজ ছাড়া অন্য কোথায় In-Stream Ads এর বিজ্ঞাপন ভিডিওতে লাগানো যায় না। 
  • আপনার ফেসবুক পেজে ১০,০০০ লাইক থাকতে হবে।
  • গত ৬০ দিনে আপনার ফেসবুক পেজের ভিডিওতে মিনিমাম ৬০০,০০০ ওয়াচটাইম থাকতে হবে এবং প্রত্যেকটি ভিউ মিনিমাম ১ মিনিটের হতে হবে। তাছাড়া আপনার প্রত্যেকটি ভিডিও কমপক্ষে ৩ মিনিট লম্বা হতে হবে। কারণ ৩ মিনিটের ছোট ভিডিওতে ফেসবুক বিজ্ঞাপন শো করে না।
  • আপনার বয়স অবশ্যই কপক্ষে ১৮ হতে হবে।
  • আপনার ভিডিও এর ভাষা ফেসবুক In-Stream Ads সাপোর্ট করে না, এমন ভিডিও আপলোড করলে ভিডিও মনিটাইজ হবে না। তবে টেনশনের কোন কারণ নেই, ফেসবুক In-Stream Ads বাংলা ভাষা সাপোর্ট করে।
  • ফেসবুক এর Partner Monetisation Policies মেনে ভিডিও তৈরি করতে হবে।

উপরের শর্তগুলো মেনে আপনি ফেসবুক পেজের মনিটাইজেশন পেতে পারেন। এবং মাসিক একটা ভালো অংকের টাকা আয় করতে পরেন ফেসবুক থেকে।

আরো জানতে পড়ুন: ফেসবুক পেজ থেকে টাকা ইনকামের পদ্ধতি

১৭. Instant Article থেকে ফেসবুকে আয় করুন

আপনার ওয়েবসাইটের আর্টিকেল ফেসবুকে প্রকাশ করে টাকা আয় করুন। ফেসবুক Instant Articles নামের একটি প্রোগ্রাম লঞ্চ করেছে। যেখানে আপনার সাইটের আর্টিকেলে গুগলের মতো এড দেখানো হবে।

Instant Article থেকে ফেসবুকে আয় করুন
Instant Article থেকে ফেসবুকে আয় করুন

Instant Articles হচ্ছে ফেইসবুক এর মোবাইল Publishing টুল। যার মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগের ডিজাইনকে কাষ্টমাইজ করে অপটিমাইজ করার মাধ্যমে দ্রুততম সময়ে লোড নেওয়া হয়। অপটিমাইজ করার ক্ষেত্রে ফেইসবুক Instant Articles ওয়েবসাইটের ডিজাইনকে কোন গুরুত্ব না দিয়ে শুধুমাত্র আর্টিকেল গুরুত্ব দিয়ে একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইটের কনটেন্ট দ্রুত লোড নিতে সাহায্য করে।

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের আওতায় শুধুমাত্র নিউজ চ্যানেলগুলো মনিটাইজ পায়।

facebook থেকে টাকা আয় করার উপায়।

১৮. ফেসবুক পেজ বিক্রি করে আয়

আপনার কাছে যদি অনেক ফলোয়ার বিশিষ্ট একটি ফেসবুক পেজ থাকে, সেটা বিক্রি করে টাকা আয় করতে পারবেন।

ফেসবুক পেজ বিক্রি করার উদ্দেশ্যে তৈরি করলে, একটি নির্দিষ্ট টপিকের উপর ফেসবুক পেজ তৈরি করুন। সেটার উপর নিয়মিত পোস্ট করুন। ফেসবুকের ফলোয়ার বাড়লে ফেসবুক পেজ বিক্রির বিভিন্ন গ্রুপে বিজ্ঞাপণ দিন।

একটি পেজে যদি ১মিলিয়ন ফলোয়ার থাকে তবে সেটা খুব সহজে ২০,০০০টাকায় বিক্রি করতে পারেন।

কিছু কথা: ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার জন্য আপনাকে ধৈয্য ধকে কাজ করতে হবে। আপনি মোবাইল দিয়ে আয় করতে পারেন। আমি যে পদ্ধতিগুলো শেয়ার করেছি তার অধিকাংশ কাজ মোবাইল ব্যবহার করে করতে পারবেন।

বর্তমানে ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের গুরুত্ব বাড়ছে। ফেসবুক ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের অবিচ্ছেদ্দ অংশ। ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে কথ বলব অথচ ফেসবুকের কথা আসবে না এমনটা হতেই পারে না।

উপরের যেকোনো একটা বা দুইটা পয়েন্ট বেছে নিন, ফেসবুক থেকে আয় করার জন্য। লেগে থাকুন কখনও ছেড়ে দিবেন না; প্রথম বার না হলে দ্বিতীয়বার হবে, না হলে তৃতীয়বার চেষ্টা করতে দ্বিধা করবেন না। সফলতা আপনারই হবে।

facebook থেকে টাকা আয় করার উপায়।

কিছু প্রশ্ন ও উত্তর

ইউটিউবের ভিডিও ফেসবুকে আপলোড করে আয় যায়?

ফেসবুক এখনো পর্যন্ত ইউটিউবে আপলোড হওয়া ভিডিও ফেসবুকে আপলোড করতে দিচ্ছে। কিন্তু আপনি অন্যের ভিডিও ইউটিউব থেকে ডাউনলোড করে ফেসবুকে আপলোড দিতে পারবেন না।

অন্যের ভিডিও ইউটিউব থেকে ডাউনলোড করে ফেসবুকে আপলোড দিলে ফেসবুক বুঝতে পারবে?

ঐ ভিডিও আগে ফেসবুকে আপলোড দেয়া না থাকলে অথবা যার ভিডিও দিবেন, সে রিপোর্ট না করলে ফেসবুক বুঝতে পারবে না। আজ হোক কাল হোক ধরা খেতেই হবে।
অনলাইনে কোনো জিনিসই লুকানো যায় না। ডিজিটাল কন্টেন্ট চুুরি করা অপরাধ, সৃষ্টিকর্তার কাছে হিসাব দিতেই হবে।


ফেসবুক থেকে কত টাকা আয় করা যায়?

আপনার কাজের দক্ষতার উপর নির্ভর করবে। আপনি ১,০০০ থেকে ১০০,০০০ টাকাও মাসে আয় করতে পারেন।

কতটাকা হলে ফেসবুক পেমেন্ট করে?

১০০ ডলার হলে ফেসবুক আপনার একাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করে দিকে।

ফেসবুক থেকে আয় করতে কি কি লাগে?

সবচেয়ে বড় যে জিনিসটি লাগবে তা হল ধৈর্য্য ও কাজ করার মানষিকতা। মোবাইল দিয়ে কাজ চালিয়ে নিতে পারবেন। কম্পিউটার হলে ভালো হয়।

প্রযুক্তির প্রতি চরম আকর্ষণ থেকেই টেলিকমিউনিকেশনে পড়ছি। প্রযুক্তির কঠিন বিষয়গুলি সহজভাবে মানুষকে বলতে খুবই ভাল্লাগে। এই ভালোলাগা থেকেই লেখালিখি শুরু। ওয়েব ডেভলপমেন্ট ও নেটওয়ার্কিং প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করা আমার নেশা ও পেশা।

মন্তব্য করুনঃ-