টুইটার থেকে ইনকাম করার উপায় | কিভাবে Twitter থেকে আয় করা যায়।

টুইটার থেকে ইনকাম করার ৯টি পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করেছি। কিভাবে টুইটার থেকে আয় করা যায় সে বিষয়ের পুরো গাইডলাইন। Make money on twitter in Bengali

1040 VIEWS

টুইটার থেকে ইনকাম

অনেক জনপ্রিয় একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ভিতর টুইটার অন্যতম। বর্তমানে কয়েক শত মিলিয়ন লোক টুইটার ব্যবহার করে। আপনার প্রোডাক্টের মার্কেট যদি আমেরিকা বেস হয়, তাহলে টুইটার আপনার জন্য বেস্ট প্লাটফর্ম। করন আমেরিকানরা টুইটার বেশি ব্যবহার করে।

কিভাবে টুইটার থেকে ইনকাম করার যায় সেগুলো সম্পর্কে জানব। তার আগে আমাদের জনতে হবে টুইটারে কিভাবে ফলোয়ার বাড়ানো যায়।

টুইটার থেকে আয় করার প্রথম শর্ত হল ভালো কোয়ালিটি সম্পন্ন ফলোয়ার থাকতে হবে। ফলোয়ার বাড়াতে হলে আপনার একাউন্টের কোয়ালিটি বাড়াতে হবে। তো চলুন একটু কোয়ালিটি বাড়িয়ে চটপট ফলোয়ার বাড়িয়ে নিই।

টুইটার থেকে টাকা আয়: আকর্ষনীয় টুইটার প্রোফাইল তৈরি করুন।

প্রোফেশনাল টুইটার প্রফাইল

প্রফাইলের ছবি

যেকোনো সোস্যাল মিডিয়ার জন্য প্রফাইলের ছবিটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। টুইটারের প্রোফাইল পিকটি যতটা সম্ভব প্রফেশনাল করুন। টুইটার প্রফাইল ইমেজের মাধ্যমে খুব সহজে আপনার প্রোফেশনালিজম ফুটিয়ে তুলতে পারেন।

আপনার পার্সোনাল প্রোফাইলের জন্যে সুন্দর আর ভদ্র গোছের একটা ইমেজ ব্যবহার করুন। খেয়াল রাখবেন আপনার ইমেজটি যেন ব্যক্তিত্বসম্পন্ন হয় অর্থাৎ আপনার ছবির দিকে তাকিয়ে যে কারোই যেন আপনার সম্পর্কে অত্যন্ত ভাল ধারণা হয়। আর যদি এটি আপনার বিজনেস অ্যাকাউন্ট হয়, তবে অবশ্যই আপনার কোম্পানীর লোগো ব্যবহার করুন।

আকর্ষনীয় কভার ফটো ব্যবহার করুন।

কোনো ভিজিটর আপনার প্রফাইল দেখলেই যেন ভাবে প্রফাইটলের লোকটি গোছালো। ফেসুবুকের মতো টইটারেও প্রোফাইল ইমেজের পাশাপাশি কভার ইমেজ ব্যবহার করা যায়।

সুতরাং, এ সুযোগটি হাতছাড়া করবেন না। ম্যাগাজিন কাভারের মতো সুন্দর একটি কভার ইমেজ ব্যবহার করুন। মাঝে মাঝেই ইমেজটি পাল্টে দিন। আর ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে অবশ্যই ইমেজগুলোর এমন ভাবে ডিজাইন করুন, যা আপনার ব্র্যান্ডকে প্রমোট করে।

আরো অনেক কিছুর মাধ্যমেই আপনি আপনার অ্যাকাউন্টটিকে প্রফেশনাল করে তুলতে পারে। যাতে করে আপনার একটি বড় ধরণের ফলোয়ার বেস তৈরি হয়।

আর যদি আপনার ফলোয়ার বেস ছোট হয় কিন্তু তারা আপনার পোস্টের সাথে সব সময় সম্পৃক্ত থাকে, তাহলেও আপনার সফলতার সম্ভাবণা বেড়ে যাবে।

আকর্ষনীয় একটি Bio লিখুন

আপনার টুইটার Bio আপনাকে টুইটার সার্চে খুঁজে পেতে সাহায্য করবে। আপনার ফলোয়ার বাড়াতে টুইটারের বায়ো একটি বড় অবদান রাখে।

সুতরাং, ১৬০টি অক্ষরের মধ্যে অত্যন্ত সুন্দর করে আপনার সম্পর্কে একটি বায়ো লিখুন।

আপনার যদি কোন ওয়েবসাইট বা বিজনেস থাকে, তবে হ্যাসট্যাগের মাধ্যমে কি-ওয়ার্ড যোগ করুন। আর অবশ্যই খেয়াল রাখবেন হ্যাসট্যাগ যেন ক্লিক্যাবল হয়। আবার সরাসরি আপনার ওয়েবসাইটের নামটি লিখে দিতে পারেন।

অর্থাৎ, ক্লিক করলেই যেন আপনার দেয়া কি-ওয়ার্ডে প্রবেশ করা যায়। আমার বায়ো যেন আকর্ষণীয় হয় সেদিকেও খেয়াল রাখুন।

টুইটার থেকে টাকা আয়: টুইটার থেকে আয় করার উপায়

আপনার টুইটারের প্রোফাইল সাজানো শেষ, এবং যথেষ্ট ফলোয়ার আছে!! এখন আপনি চাইলে ‍টুইটার থেকে আয় করতে পরেন।

#১. এফিলিয়েট থেকে আয়

আপনি যদি টুইটারের মাধ্যমে এফিলিয়েট লিংকের প্রোমোশন করাতে চান; তবে নির্দিষ্ট নিশের উপর প্রোফাইল তৈরি করুন।

টুইটারে টার্গেটেড অডিয়েন্স পাওয়া খুবই সহজ। আপনার যদি একটি ভালো মানের টুইটার ফলোয়ার পেতে চান তবে, প্রোফাইল তৈরি করুন। নিয়মিত পোস্ট করুন।

আপনার ফলোয়ারদের সাথে এঙ্গেজ থাকার চেষ্টা করুন। ফলোয়ারদের সাথে যত এঙ্গেজ থাকতে পরবেন আপনার এফিলিয়েট লিংকের তত প্রোমশন ।

এফিলিয়েট থেকে আয়
এফিলিয়েট থেকে আয়

এফিলিয়েট প্রোমশন করার সময় আপনার নিশের সাথে মিল আছে এমন প্রডাক্টের উপর কাজ করুন। যেকোনো একটি নিশ নিয়ে কাজ না করলে আপনার ফলোয়ারদের এঙ্গেজমেন্ট রেট কম হবে। আপনার ইনকাম নিচের দিকে নেমে যাবে করবে।

#২. সার্ভে বা মতামত গ্রহণ

কোনোকিছুর ফ্রিতে মতামত গ্রহণের জন্য টুইটার খুব ভালো একটি মাধ্যম হতে পারে। টুইটারে অনেক অনেক লোকজন থাকে।

আপনার যদি কোনো কাজ বা সার্ভিসের বিষয়ে মতামত গ্রহণের দরকার হয় তবে ফেসবুকের মতো টুইটারকে ব্যবহার করতে পারেন।

#৩. টুইটার থেকে ইনকাম: প্রডাক্ট বিক্রি করুন

আপনার যদি কোনো সর্ভিস বা প্রডাক্ট থকে এবং আপনি সেটা বিক্রি করতে চান। তাহলে টুইটার থেকে অনেক কাস্টমার পেতে পারেন।

টুইটারে কয়েক মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার বা ব্যবহারকারী রয়েছে। যাদের মধ্যে কিছু লোকের আপনার প্রডাক্টের দরকার। আপনার দরকার তাদের খুজে বের করা ও তাদের কাছে আপনার প্রডাক্টের সম্পর্কে বলা।

আমার বিশ্বাস আপনি যদি আপনার টার্গেটেড অডিয়েন্সের কাছে আপনার পণ্যের সঠিক প্রচার করতে পারেন; তবে আপনার কাস্টমারের অভাব হবে না।

আপনার দরকার শুধু তাদের অ্যাটেনশন গ্রো করা।

#৪. স্পন্সার পোস্ট

স্পন্সার পোস্ট

টুইটার দুনিয়ায় খুবই পরিচিত একটি অ্যাড সার্ভিস যা আপনাকে আপনার টুইটার অ্যাকাউন্টের প্রতিটি পোস্টের সঙ্গে অ্যাড প্রদর্শণ এবং অ্যাডগুলোতে প্রতি ক্লিকের জন্য মূল্য নির্ধারণ করে দেয়ার সুযোগ দিচ্ছে।

এমনকি, কী ধরণের অ্যাড আপনি প্রদর্শণ করতে চান, তাও আপনি ঠিক করে দিতে পারবেন।

Sponsored Tweets এর সঙ্গে ব্যবসায়িক চুক্তির জন্য আপনার প্রোপাইলের কমপক্ষে ৫০ জন ফলোয়ার এবং ১০০টি টুইট বা পোস্ট থাকতে হবে। ৫০ জন ফলোয়ার পাওয়া যে কারো জন্য ১ দিনের ব্যাপার হলেও ১০০টি পোস্ট করতে আপনার জন্য ৫/৬ দিন লেগে যেতে পারে।

#৫. টুইটার থেকে ইনকাম: অন্যের পণ্যের প্রমোশন করুন

বর্তমানে ফিজিক্যাল ও আনফিজিক্যাল সকল পণ্য অনলাইনে বিক্রি হয়। আপনার নিশের সাথে যায় এমন পণ্য খুজে বের করেন।

পণ্যের বিক্রেতাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনি তাদের কে অফার পাঠান, যে আপনি তাদের পণ্য বিক্রি করে দেবেন। আপনাকে বিক্রির ২% -৩০% করে দিতে হবে। তারা রাজি হলে কাজ শুরু করুন।

অনলাইন বিভিন্ন শর্ট-লিংকার সাইট আছে সেখান থেকে লিংক বনিয়ে প্রমোশন ‍শুরু করুন। শর্ট-লিংকার সাইটগুলো আপনার লিংক ট্রাক করার সুবিধা দেয়। তাই এটি ব্যবহার করা ভালো।

অনেক প্রডাক্ট আছে যেগুলোর প্রমোশন এমন ভাবে করবেন। যে আপনার পণ্যের প্রমোশন করব, প্রতি ১০০০ কি ৫০০০ এঙ্গেজমেন্টে কত টাকা করে নিবেন।

মূলত এই দুইভাবে অন্যের পণ্যের প্রোমোশন করা যায়।

#৬. টুইটার থেকে ইনকাম: কোর্স বিক্রি

বর্তমানে সকল সেলিব্রিটি ও কোম্পানীর সোস্যাল মিডিয়া একাউন্ট রয়েছে। তাদের সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজ করার জন্য সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজারের দরকার হয়।

আপনি যদি সোস্যাল মিডিয়া সম্পর্কে একজন এক্সপার্ট হন, অথবা শুধু টুইটারের বিষয়ে এক্সপার্ট হন। তাহলে মানুষকে শিখানোর জন্য কোর্স বানাতে পারেন।

যেহেতু সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার হিসাবে মানুষ আয় করতে পারে। তাই নিঃসন্দেহে আপনার কোর্সের বিক্রি হবে।

#৭. টুইটার থেকে ইনকাম: ইউটিউব চ্যানেল

আপনি যদি সরাসরি কোর্স বিক্রি করে টাকা আয় করতে না চান; ইউটিউব চ্যানেল খুলে সেখানে ফ্রিতে শিখান।

বর্তমানে দ্বিতীয় বৃহত্তম সাইট হল ইউটিউব। দিন দিন এখনে ইইজারের সংখ্যা বাড়েছে। এখানে মনিটাইজেশনের মাধ্যমে অনেকটাকা আয় করা যায়। আপনি এখানে ইউটিউব বিষয়ে টিপস ও ট্রিকস শেয়ার করতে পারেন।

টুইটারের জ্ঞান দিয়ে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার খুবই ভালো একটি পদ্ধতি। আপনারা তো জানেন: ইউটিউবের আয় প্যাসিব এবং মনিটাইজেশন সহ ইউটিউব থেকে আয়ের আরো অনেক উপায় আছে।

#৮. টুইটার থেকে ইনকাম: গুগল এডসেন্স

আপনি হয়তো ভাবছেন টুইটার থেকে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে কিভাবে টাকা আয় করব। না!!! আমি এখানে সেটা বুঝাচ্ছি না।

আপনার যদি কোনো ওয়েবসাইট থাকে তবে, সেখানে ভিজিটারের সংখ্যা বাড়াতে টুইটারকে ব্যবহার করতে পারেন। টুইটারের আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের প্রমোশন করে ভিজিটর বাড়ান।

ব্লগে বেশি ভিজিটর মানে বেশি আয়। ব্লগে ভালো ভিজিটর হলে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে অনেক টাকা আয় করতে পরেন। তাছাড়া ব্লগে বেশি ভিজিটর হলে আয়ের আরো উপায় আছে।

#৯. কন্টেস্টের আয়োজন করুন

প্রতিযোগীতায় জেতা মানুষের নেশা। যদি আপনার কোনো ব্যবসায়িক প্রচারের দরকায় হয়; প্রতিযোগীতার আয়োজনের মাধ্যমে সেটা করতে পারেন।

আপনার ওয়েবসাইটে প্রতিযোগীতার আয়োজন করুন; আপনি টুইট ব্যবহার করে সাবাইকে সেই লিংক দিয়ে প্রতিযোগীতায় অংশ নিতে বলুন। লোভনীয় অফারের কথা বলতে ভুলবেন না 🙂

দেখবেন রাতারতি কতজন ভিজিটার পেয়ে যাবেন। সেখান থেকে কাস্টমার কনভার্ট করে নিন। মার্কেটিং করার জন্য প্রতিযোগীতার আয়োজন অনেক বুদ্ধিমান মার্কেটিং পদ্ধতি।

#১০. টুইটার বেস ‍এড নেটওয়ার্ক লিস্ট

আলোচিত সাইট সবটিই অ্যাডভারটাইজিং প্লাটফর্ম। এগুলোর মাধ্যমে টুইটারে এড নিতে পারবেন। এই সাইটগুলো ইউটিউব ক্রিয়েটর ও বিজ্ঞাপণদাতাদের মাঝে সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করে।

এই নেটওয়ার্কের মধ্যে থেকে যেকোনো একটি বেছে নিয়ে কাজ শুরু করবেন। আশা করি আপনার টুইটার জার্নি সফল হবে।

কিছুকথা: অনলাইন থেকে আয় করতে হলে প্রচুর ধৈর্য্য ধরে কাজ করতে হবে। প্রতিদিন কাজ করার মানুষিকতা থাকতে হবে। প্যাশন থাকতে হবে তবেই আয় করতে পারবেন। রাতারাতি অনলাইনে আয় করার চিন্তা করা বোকামী ছাড়া কিছুই না।

কিছু প্রশ্ন ও উত্তর:

টু্ইটার থেকে কি আয় করা যায়?

হ্যা। অবশ্যই টুইটার থেকে আয় করা যায়। যদি আপনার ভালো মানের ফলোয়ার থাকে।

টুইটার থেকে কত টাকা আয় করা যায়?

এটা আপনার মার্কেটিং দক্ষতার উপর নির্ভর করে। আপনি আপনার ফলোয়ারদের কতজনকে কাস্টমারে কনভার্ট করতে পারবেন; তার উপর আপনার আয় নির্ভর করে। যেমন: আপনি একটি শার্টকোম্পানীর সাথে চুক্তি করলেন প্রতি বিক্রিত শার্টের জন্য ১০ ডলার নিবেন। মাসে ১০০টা শার্ট বিক্রি করে ১০০০ ডলার আয় করতে পারেন।

টুইটার থেকে সরাসরি টাকা আয় করা যায়?

টুইটারের ইউটিউব বা ফেসবুকের মতো কোনো মনিটাইজেশন সিস্টেম নেই। তাই এখান থেকে সরাসরি আয় করা যায় না।

টুইটার থেকে আয় হতে কতদিন লাগে?

নির্দিষ্ট সময়সীমা নেই; আপনার পরিশ্রম ও ভাগ্যের উপর নির্ভর করবে। প্রথম আয় আসতে ৬ মাস লাগবে এটা ধরে সঠিকভাবে কাজ করুন।

টুইটার থেকে আয়ের ভবিষ্যত কেমন?

সকল সোস্যাল মিডিয়া সাইটের মতো। যতদিন বাকি সোস্যাল সাইটগুলো থাকবে টুইটারও থাকবে বলে আশা করা যায়।

প্রযুক্তির প্রতি চরম আকর্ষণ থেকেই টেলিকমিউনিকেশনে পড়ছি। প্রযুক্তির কঠিন বিষয়গুলি সহজভাবে মানুষকে বলতে খুবই ভাল্লাগে। এই ভালোলাগা থেকেই লেখালিখি শুরু। ওয়েব ডেভলপমেন্ট ও নেটওয়ার্কিং প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করা আমার নেশা ও পেশা।

মন্তব্য করুনঃ-